Home / বিভাগীয় সংবাদ / রংপুর / বিপজ্জনক এই ব্রিজ পার হয়েই স্কুলে যেতে হয় হাজারো শিক্ষার্থীকে

বিপজ্জনক এই ব্রিজ পার হয়েই স্কুলে যেতে হয় হাজারো শিক্ষার্থীকে

জুমবাংলা ডেস্ক : ভোট শেষে ব্রিজের সংস্কার কাজ শুরুর প্রতিশ্রুতি দিয়ে গিয়েছিলেন প্রার্থীরা। কিন্তু সংসদ নির্বাচন শেষ হলেও এখন ব্রিজের ব্যাপারে আর কেউ খোঁজ নেয় না। আসছে উপজেলা নির্বাচনেও হয়তো আশ্বাস পাবো। কিন্তু আমরা আর কতকাল অপেক্ষা করব? আর কতদিন এভাবে কষ্ট করে স্কুলে যেতে হবে বাচ্চাদের?

অনেকটা আক্ষেপ নিয়েই কথাগুলো বলছিলেন লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের বাসিন্দা ললনী কান্ত।

তিনি আরও জানান, একটি ব্রিজের অভাবে ৬টি গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। বিশেষ করে বেশি দুর্ভোগে পড়ে আশোয়ারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, ২০১৫ সালে প্রায় ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে পাটগ্রাম উপজেলার জগতবেড় ইউনিয়নের আশোয়ার পাড় চেনাকেটা নদীর উপর ব্রিজটি নির্মাণ করে স্থানীয় প্রকৌশলী বিভাগ। নির্মাণের কিছুদিন পরে বন্যায় ব্রিজের দুই অংশ ভেঙে যায়। এতে দুর্ভোগে পরে প্রায় ২০ হাজার মানুষ।

সরজমিনে দেখা গেছে, রাস্তা ঠিক থাকলেও ব্রিজটির দুই অংশ ভেঙে গিয়েছে। এ কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগ পোহাচ্ছে এলাকাবাসী।

আশোয়ারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থী রাসনাথ জাহান সিমা বলে, আমাদের ব্রিজ ঠিক করে দেন। আমাদের স্কুলে যেতে অনেক কষ্ট হয়।

ওই এলাকার আফসার উদ্দিন বলেন, যাতায়াতের জন্য মাত্র একটি রাস্তাই রয়েছে আমাদের। তাও আবার ব্রিজের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের একটিই চাওয়া, তিনি যেন খুব দ্রুত এই ব্রিজটি ঠিক করে দেন।

জগতবেড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নবিবর রহমান জানান, বরাদ্দ এলেই ব্রিজটি সংস্কার করে দেওয়া হবে।

পাটগ্রাম উপজেলা প্রকৌশলী আবু তৈয়ব শামসুজ্জামান বলেন, ব্রিজটির এমন অবস্থার বিষয়টি আমাদের কেউ জানায়নি। জানালে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারতাম। এবার বরাদ্দ এলেই ব্রিজটির সংস্কারের কাজ করা হবে।

Check Also

এরশাদের দুর্গ অক্ষত, হারলো ঐক্যফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক : রংপুর-৩ (সদর) আসনে নিজের আধিপত্য ধরে রেখেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন …