Home / জাতীয় / কাজে না ফিরলে কারখানা বন্ধ, মজুরিও দেয়া হবে না : বিজিএমইএ

কাজে না ফিরলে কারখানা বন্ধ, মজুরিও দেয়া হবে না : বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামীকাল সোমবার ( ১৪ জানুয়ারি) থেকে শ্রমিকরা কারখানায় কাজ না করলে কোনো মজুরিও দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)। একইসঙ্গে কারখানা বন্ধ করে দেয়ার হুমকিও দিয়েছেন বিজিএমইএ নেতারা।

পোশাক শিল্পে উদ্ভূত পরিস্থিতির বিষয়ে আজ রবিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

শ্রমিকদের উদ্দেশে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘আপনারা কর্মস্থলে ফিরে যান, উৎপাদন কাজে অংশগ্রহণ করুন। আর যদি আগামীকাল থেকে কাজ না করেন, তাহলে আপনাদেরকে কোনো মজুরি প্রদান করা হবে না এবং ঐ কারখানা শ্রম আইনের ১৩/১ ধারা মোতাবেক অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয়া হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, সংসদ সদস্য সালাম মুর্শেদিসহ বিজিএমইএ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

নতুন মজুরি কাঠামো অনুযায়ী প্রতিশ্রুত মজুরি এবং মজুরি কাঠামোর পরিবর্তনের দাবিতে গত বেশ কয়েকদিন ধরেই কাজ বন্ধ রেখে আশুলিয়া ও সাভারের বিভিন্ন এলাকায় শ্রমিকেরা বিক্ষোভ করে আসছেন। এ ছাড়া রাজধানীর উত্তরা, মিরপুরসহ কয়েকটি এলাকায় শ্রমিক বিক্ষোভ হচ্ছে।

সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস আজ রোববারও আশুলিয়া ও সাভারে শ্রমিকেরা বিক্ষোভ করছেন। বিক্ষোভের কারণে আশুলিয়ার জামগড়া ও নরসিংহপুরের অন্তত ৫০টি কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে অন্তত ১০ জন শ্রমিক।

শ্রমিকরা বলছেন, নির্বাচনের আগে বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে টাকা না দেয়ায় শ্রমিকদের ক্ষোভ বেড়েছে। বেতন বাড়ার খবরেই জীবনযাত্রার খরচ বৃদ্ধির দিকে বলে দাবি তাদের। যার কারণে অনেকে পেটের টানেও সড়কে নামছেন বলে জানিয়েছেন কয়েকজন।

আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আশুলিয়ার জামগড়া ও নরসিংহপুরে শ্রমিকেরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখায়। তারা রাস্তায় টায়ার পুড়িয়ে বিক্ষোভ দেখান। বিক্ষোভের সময় শ্রমিকেরা বাসে ঢিল ছুঁড়ে মারেন। এতে কয়েকজন যাত্রী আহত হন।

বিক্ষোভের কারণে আজ আবদুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশ জলকামান, টিয়ারগ্যাস ব্যবহার করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় প্রায় চার কিলোমিটার সড়কে ছড়িয়ে পড়ে সংঘর্ষ।

বিক্ষোভ খানিকটা কমে এলে বেলা ১১টার দিকে যানবাহন চলাচল শুরু হয়। তবে আজ সড়কে যানবাহনের সংখ্যা অন্য দিনের তুলনায় কম।

Check Also

কাঁচামালের দাম ঊর্ধ্বমুখী, বাড়ছে রডের দাম

বিজনেস ডেস্ক : আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশের বাজারে রডের মূল্য এখন ঊর্ধ্বমুখী। …